এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের বেতন পেতে বিড়ম্বনা

Spread the love

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা আপনার প্রতি আমাদের শিক্ষক পরিবারের পক্ষ থেকে হাজারো সালাম।

দেশে বিরাজমান করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচাতে আপনার সঠিক দিক নির্দেশনাও গৃহীত প্রয়োজনীয় ব্যবস্হার জন্য আমরা শিক্ষক পরিবারেরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের তুলনায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগন শিক্ষাদান ও শিক্ষার মান উন্নয়নে অধিক ভূমিকা পালন করে থাকেন, কিন্তু খুব দুঃখের বিষয় যে, সরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের মত যথা সময়ে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীগন বেতন ভাতাদি পায়না।

বর্তমান ডিজিটাল বাংলাদেশে সকল সরকারি ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং সেবা চালু আছে। অনলাইন পদ্ধতির চালু থাকা সত্ত্বেও বেসরকারি স্কুল,কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষকদের বেতন প্রদানে এই পদ্ধতি ব্যবহার হচ্ছে না। বর্তমান ডিজিটাল বাংলাদেশে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা ছাড়করন কর্তৃপক্ষের আন্তরিকতার অভাব ও অনেক সময় ব্যাংক ছুটি থাকার কারণে শিক্ষক কর্মচারীদের পূর্ববর্তী মাসের বেতন পেতে পরবর্তী মাসের দশ পনের দিন লেগে যায়। তদুপরি বর্তমানে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারনে লকডাউন এলাকায় ব্যাংক না থাকায় ও যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকার জন্য অন্য এলাকায় অবস্হিত বেতন উত্তোলনের জন্য নির্ধারিত ব্যাংক থেকে যথাসময়ে বেতন উত্তোলন করা সম্ভব হয়না।

বর্তমান ডিজিটাল বাংলাদেশে তথ্য প্রযুক্তির যুগে আপনার নির্দেশনায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে অনলাইন পদ্ধতির উন্নত ব্যবস্হাপনায় বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্টানে কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা (পূর্ববর্তী মাসের) পরবর্তী মাসের এক থেকে তিন তারিখের মধ্যে শিক্ষক কর্মচারীদের নিজ নিজ ব্যাংক একাউন্টে সরাসরি পাঠানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণ করলে বেঁচে যাবে এই শক্ষিক পরিবার গুলো।

মোঃ নজরুল ইসলাম
সহ সভাপতি বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম, নরসিংদী জেলা কমিটি ও
প্রধান শিক্ষক
রামনগর হাই স্কুল
রায়পুরা, নরসিংদী।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x