কলকাতার ‘কনটেনমেন্ট’ এলাকাগুলি সিল করছে রাজ্য, নামানো হল কমব্যাট ফোর্স

Spread the love

সুব্রত দে,কলকাতা:
নবান্নের সভাঘর থেকে হাওড়া ও কলকাতাবাসীকে সম্পূর্ণরূপে লকডাউন মানার আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।কলকাতাকে হটস্পট ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তার আগেই অবশ্য শহরের বিভিন্ন এলাকাকে চিহ্নিত করে করোনা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে কলকাতা পুরসভা ও পুলিস। ওই এলাকাগুলিকে ‘স্পর্শকাতর’ বা ‘হাই রিস্ক জোন’ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

করোনা মোকাবিলায় কলকাতায় কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে?

কলকাতাকে রেড স্টার হিসাবে চিহ্নিত করেছেন রাজ্য সরকার। তার মধ্যে ‘কনটেনমেন্ট’ এলাকা অর্থাৎ যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি, তা পুরো সিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে কোন কোন এলাকায় তা করা হচ্ছে, তা শনিবারও স্পষ্ট করে জানাননি মুখ্যসচিব।

স্পর্শকাতর জেলাগুলিতে লকডাউন রূপরেখা কী,তা খতিয়ে দেখতে পথে নামানো হল কমব্যট ফোর্স। কলকাতার বেশ কিছু অংশে লকডাউন মানা হচ্ছে না। অযথা বাজারগুলিতেও ভিড় করা হচ্ছে। রাস্তায় বেরোচ্ছেন বহু মানুষ। সেই সব এলাকায় নজরদারি বাড়ানোর কথা আগেই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার সকাল থেকে সেসব এলাকায় কমব্যাট ফোর্স রুট মার্চ শুরু করবে। মূলত যে সব এলাকাগুলি রেড জোন হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে, সেখানে নজরদারি আরও সুদৃঢ় করতেই সরকারের এই পদক্ষেপ।

মোট ১২ জন নোডাল অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। তাঁদের প্রত্যেকের দায়িত্বে এক বা একাধিক জেলা থাকবে। জেলাগুলির ওপরও কড়া নজর রেখেছে রাজ্য সরকার। জেলাগুলির দায়িত্বে নিয়োগ করা হয়েছে নোডাল অফিসার।
ইতিমধ্যেই সেই তালিকা প্রকাশ করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রত্যেক দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারকে তাঁদের নিজেদের জেলা পরিদর্শনে যেতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x