কুড়িগ্রাম কারাগারে তৈরী হচ্ছে দর্শনার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার

কুড়িগ্রাম কারাগারে তৈরী হচ্ছে দর্শনার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার

সারাদেশ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রাম জেলা কারাগারে কয়েদীর সাথে দেখা করতে আসা স্বজনদের ও দর্শনার্থীদের জন্য নির্মিত হতে যাচ্ছে বিশ্রামাগার।

রোববার (৬ জুন) বিকেলে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উলিপুরের স্থানীয় এনজিও মহীদেব যুব সমাজ কল্যাণ সমিতির অর্থায়নে এবং কারা-কর্তৃপক্ষের সহায়তায় বিশ্রামাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

কারাগার সুত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রাম জেলা কারাগারে কয়েদীর পরিবারের লোকজন, দর্শনার্থী এবং আসামীদের জামিন বা মুক্তিনামা মূলে কারাগার থেকে মুক্তির দিন আসামীর আত্মীয়স্বজন যারা তাদের নিতে আসেন তারা কারাগারের সামনে এবং রাস্তার ওপরে দাঁড়িয়ে থাকেন। আদালত থেকে মুক্তি পরোয়ানা আসা ও কারাগার কর্তৃক গ্রহণের পর রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ ও বিভিন্ন পদ্ধতিগত নিয়মকানুন থাকায় সেগুলো অনুসরণ করার জন্য অনেকটা সময়ের প্রয়োজন হয়।

ওই সময়ে অপেক্ষারত বৃদ্ধ, মাঝবয়সী মহিলা ও শিশুসহ অনেককেই শীত, গ্রীষ্মের প্রখর রোদে এবং বৃষ্টির সময় কারাগারের মূল ফটকের সামনে ও রাস্তার ওপর দাঁড়িয়ে সময় অতিবাহিত করতে হয়। একদিকে এটি তাদের জন্য যেমন কষ্টকর তেমনিভাবে পীড়াদায়ক আবার অন্যদিকে অপমানজনক ও দৃষ্টিকটু।

বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেজাউল করিম এর নজরে আসলে তিনি সার্বিক অবস্থা অনুধাবন করে মানবিক দিক বিবেচনায় অপেক্ষারত সম্মানিত আত্নীয়-স্বজন বিশেষ করে বয়স্ক, মহিলা ও শিশুদের জন্য একটি মানসম্মত বিশ্রামাগার নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। যেখানে বসার স্থান সহ রোদ-বৃষ্টি হতে নিষ্কৃতির জন্য মাথার উপরে ছাউনী থাকবে। এছাড়াও কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে হাত ধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন,”আমরা দীর্ঘদিন ধরে কারাগারের এই সমস্যাটি দেখছি,আশা করি কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বিশ্রামাগারটি নির্মিত হলে কয়েদীদের পরিবারের লোকজনের কিছুটা কষ্ট লাঘব হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *