গাইবান্ধায় ৫টি ইটভাটায় ৯ লক্ষ টাকা জরিমানা

Spread the love
  • 1
    Share

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় জেলা প্রশাসকের লাইসেন্স ও পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়াই ইটভাটা স্থাপনে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয় ৯ লাখ টাকা।

উপজেলার এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তরের দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে ৫টি অবৈধ ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও অনুমোদন না থাকায় আগুন দিয়ে নিভিয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) ইটাভাটায় অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ মেজিস্ট্রেট মেজবাউল হোসেন। পরিবেশ অধিদপ্তরের ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ)আইন, ২০১৩ (সংশোধিত ২০১৯ এর ১৪ ধারায় পরিবেশগত ছাড়পত্র ও লাইসেন্স ব্যতিত ইট পোড়ানোর কারনে ওই ৫ টি ইটভাটার মালিককে ৯ লক্ষ টাকা জরিমানা ও ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় ইটভাটার আগুন নিভিয়ে দেয়া হয়।ভ্রাম্যমাণ অভিযানের নের্তৃত্ব দেন রংপুর বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তর কায্যালয়ের সহকারী পরিচালক মিহির লাল সরদার।

গাইবান্ধায় ৫টি  ইটভাটায় ৯ লক্ষ টাকা জরিমানা

এসময় অভিযান টিমে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা ফায়ার সার্ভিসের উপ- সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলামসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মী এবং আইন শৃংখলার কাজে সহযোগিতায় ছিলেন পলাশবাড়ী থানার পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা। এ সময়ে উপজেলার ভগবর্তীপুর এলাকার ১. মোঃ সাইদ হাসানের মেসার্স এস এস ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,নারায়ণপুর এলাকার ২.মোঃ শরিফুল ইসলামের মেসার্স এম এস ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,হিজলগাড়ী এলাকার ৩. শ্রী গোকুল চন্দ্র রায়ের মেসার্স মা ব্রিকসের ২ লাখ টাকা, পশ্চিম গোপীনাথপুর এলাকার ৪.শ্রী গোপাল চন্দ্র রায়ের মেসার্স মা ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,পশ্চিম গোপীনাথপুর এলাকার ৫.মোঃ সাইদুর রহমানের মেসার্স এম এস এম ব্রিকসের ১লাখ টাকা করে ৫টি ইটভাটা থেকে সর্বমোট ৯ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

প্রস্তুতকৃত কাঁচা ইট পানি দিয়ে নষ্ট করে দেওয়া হয়। জনবসতিহীন ফাঁকা জমিতে ইটভাটা তৈরির নিয়ম থাকলেও সকল আইন ভঙ্গ করে কৃষিজমি, জনবসতিপূর্ণর পাশেই এ সব ইটভাটা গড়ে উঠেছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x