ভূরুঙ্গামারীতে ছাত্রী ধর্ষণ ও তার ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ায় যুবক গ্রেফতার

Spread the love
  • 2
    Shares

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে এক যুবককে আটক করেছে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ। আটককৃত যুবকের নাম সিয়ামুর রহমান খোকন (১৯)। সে উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের পাথরডুবি গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে।

জানা গেছে, ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ে যাতায়াত করার সময় খোকন তাকে প্রেম নিবেদনসহ বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করত। গত বছরের ২২ অক্টোবর স্কুল ছুটি হলে বিকাল ৪টার পর স্কুল থেকে বাড়িতে ফেরার সময় সিয়ামুর রহমান খোকন (১৯) ও তার বন্ধু একই গ্রামের  শওকত আলীর পুত্র নাজমুল হাসান রনি (১৯) মেয়েটির পথরোধ করে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী গেন্দা খলিফার পুত্র বাবলু মিয়ার বাড়িতে নিয়ে গিয়ে সেখানে খোকন মেয়েটিকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপুর্বক ধর্ষণ করে।

এসময় খোকনের সহযোগী রনি জানালার ফাঁক দিয়ে গোপনে মোবাইলের মাধ্যমে  ওই ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে এবং ঘটনাটি প্রকাশ করলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। মেয়েটি নিজের সম্মান ও জীবনের ভয়ে ঘটনাটি প্রকাশ না করে চুপ থাকে।

এছাড়াও এ ঘটনার পর বিভিন্ন সময়ে মেয়েটিকে কুপ্রস্তাব দিতে থাকে খোকন। মেয়েটি রাজি না হলে রেকর্ড করা ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকী দেয়। এতেও রাজি না হলে অবশেষে ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছেড়েই দেয়।

অবশেষে চলতি বছরের ১৮ আগস্ট মঙ্গলবার মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে সিয়ামুর রহমান খোকন ও তার দুই সহযোগী নাজমুল হাসান রনি ও বাবলু মিয়ার নামে ভুরুঙ্গামারী থানায় ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে ভুরুঙ্গামারী সরকারি কলেজপাড়া থেকে মূল আসামি সিয়ামুর রহমান খোকনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ।

এ ব্যাপারে ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি মুহা. আতিয়ার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দিয়ে তাকে আজ বুধবার (১৯ আগস্ট) কুড়িগ্রাম আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x