মহেশপুরে জমি দখল মারধর ও হত্যার হুমকি দাতা মাদক সেবনকারী আবুল ফকির আটক

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
এলাকায় জোরপূর্বক অন্যের জমি দখল, মারধর ও হত্যার হুমকি দিয়ে পুরো এলাকাজুড়ে ত্রাসের সৃষ্টিকারী মাদক সেবী আবুল ফকিরকে (৫০) গতকাল শনিবার সকালে মহেশপুর থানা পুলিশ একটি মারামারী মামলায় আটক করেছে।

আবাল ফকির র্দীঘ দিন ধরে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সামন্তা এলাকায় জোরপূর্বক অন্যের জমি দখল, মারধর করে সৃষ্টি করে আসছিলো। এঘটনায় থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগও রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার দুপুরে আবুল ফরিকের নেতৃত্বে কোদাল, রড ও হাতুরি দিয়ে পিটিয়ে একই পরিবারের ৩ জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। এর মধ্যে একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মহেশপুর থানায় দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, কাজীরবেড় ইউনিয়নের সামন্তা গ্রামের চারাতলা পাড়ার খলিলুর রহমানের ছেলে আব্দুস সামাদ (৩৭), আবু সামা (৩০) ও আবু হাসান (২৭) শুক্রবার দুপুরে নিজ জমিতে কাজ করছিল। এসময় একই গ্রামের মুনছুর মিস্ত্রীর ছেলে আবুল ফকির ও তার ছেলে আলি হোসেন, তুফান, মোফাজ্জেল দেশীয় অস্ত্র হাসুয়া, কোদাল ও হাতুড়ি দিয়ে তাদের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর ভাবে জখম করে। এসময় তাদের চিৎকারে মাঠের অন্য কৃষকরা ছুটে-আসলে আসামি আবুল ফকিরসহ তার নেতৃত্বে আসা তার ছেলেরা পালিয়ে যায়।

পরে মাঠে থাকা কৃষকদের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাকে যশোর সদর হাসপাতালে রেফাড করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, আবুল ফকিরের সাথে একই গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলেদের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে বিষয়টি কয়েকবার মীমাংসা করে দিলেও আবুল ফকির ও তার ছেলেরা তা না মেনে জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা করে। আবুল ফকির টাকা ও লাঠির জোর খাটিয়ে একের পর এক এরকম অপকর্ম করে যাচ্ছেন। তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহত পর্যন্ত পায় না।

মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, থানায় দায়ের করা একটি মারামারী মামলায় আবুল ফকিরকে আটক করা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x