মহেশপুরে নৌ সদস্যর বিরুদ্ধে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ

Spread the love
  • 38
    Shares

শামীম খানঃ

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খড়ো মান্দারতলা গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে  নৌ সদস্য নাদিম আহম্মেদ হৃদয়ের বিরুদ্ধে। তবে অভিযুক্ত নৌ সদস্য নাদিম আহম্মেদ হৃদয় ধর্ষনের ঘটনাটি সাজানো উল্লেখ্য করে জানান দুই বছর পুর্বে মেয়েটির সাথে আমার মোবাইলের মাধ্যমে একটা সম্পর্ক ছিলো। এখন যা ঘটছে সব কিছুই সাজানো।

ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে ধর্ষিতা কলেজ ছাত্রী ও এলাকার লোকজন হৃদয়কে বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার প্রকাশের এক পর্যায়ে  বুধবার সকালে ধষিতা কলেজ ছাত্রী মহেশপুর থানায় হৃদয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ দায়ের করেন।

কলেজ ছাত্রী জানান, গত দুই বছর ধরে নাদিম আহম্মেদ  হৃদয়ের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক থাকার এক পর্যায়ে গত সোমবার হৃদয় ছুটিতে বাড়িতে এসে ফোন করে রাতে তাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। বিয়ের পলোভন দেখিয়ে ধর্ষন করে। পরে গ্রাম বাসী ও আমার পরিবারের লোকজন গভীর রাতে ওই বাড়ি থেকে আমাকে নিয়ে আসেন।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার বিকালে আওয়ামীলীগ নেতা তোফাজ্জেল হোসেন ও ইউপি সদস্য আনিচ মেম্বারের নেতৃত্বে এক সালিশ বৈঠক বসে। সালিশ-বৈঠকে সর্বসম্মতি ক্রমে বিয়ের সিদ্ধান্ত হলেও হৃদয়ের পরিবার এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় বিচার না মেনে তারা চলে যায়।

সালিশ বৈঠকের বিচাকর এলাকার মাতুব্বর ও আওয়ামীগীল নেতা তোফাজ্জেল হোসেন জানান, বিচার সালিশে ঘটনাটি প্রমানিত হলেও নাদিম আহম্মেদ হৃদয়ের চাচা আমাদের কাছ থেকে এক দিনের সময় নিয়ে চলে যান।

মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মোর্শেদ হোসেন খান জানান, ২ বছর ধরে মেয়েটির সাখে হৃদয়ের সম্পর্ক রয়েছে। মেয়েটি বদি হয়ে নাদিম আহম্মেদ হৃদরকে আসামী করে বুধবার থানায় একটি ধর্ষনের অভিযোগ করেছেন। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান থানার ওসি মোহাম্মদ মোর্শেদ হোসেন খান ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x