মহেশপুরে মা ও শিশু ক্লিনিকে প্রসুতি মায়ের মৃত্যু – ক্লিনিক মালিক পলাতক

Spread the love
  • 99
    Shares

শামীম খানঃ

গ্রাম অঞ্চলে ব্যাঙ্গের ছাতার মত গজিয়ে ওঠা ক্লিনিক নাম ধারী কসাইখানায় একের পর এক সিজার অপারেশন করার সময় প্রসুতি মায়ের মৃত্যু ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা টু পাইজের মাধ্যমে ব্যাঙ্গের ছাতার মত গজিয়ে ওঠা ক্লিনিক গুলোকে লাইন্সেস দিয়েই চলেছে।

  রোববার(৯আগস্ট) রাতে ঝিনাইদহের মহেশপুরের সীমান্ত এলাকার নেপামোড়ে ব্যাঙ্গের ছাতার মত গজিয়ে ওঠা মা ও শিশু ক্লিনিকে সিজার অপারেশন করার সময় মরিয়ম খাতুন (৩০) নামের এক প্রসুতি মায়ের করুন মৃত্যু হয়েছে। মৃত মরিয়ম খাতুর মহেশপুর উপজেলার খোশালপুর গ্রামের মোকলেচ তরফদারের মেয়ে ও জিনজিরা পাড়ার শিকতার আলীর স্ত্রী। ক্লিনিকে মরিয়ম খাতুনের মৃত্যুর পরই ক্লিনিক মালিক মনোয়ার হোসেন মনু পালিয়ে যায়।

এলাকাবাসী জানান, সীমান্ত এলাকার ক্লিনিক গুলোতে একর পর এর সিজার অপারেশন করার সময় প্রসুতি মায়েদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষথেকে এখনও কোন ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বরং ক্লিনিকে কোন রোগীর মৃত্যু হলেও কর্মকর্তারা টু পাইজ নিয়ে চলে যেতে দেখা গেছে।

নেপা ইউপি চেয়ারম্যান সামছুল আলম মৃধা জানান,এলাকার কোন ক্লিনিকে ডাক্তার নেই। নেই কোন নার্স। তাহলে একটা ক্লিনিক কিভাবে চলে। স্বাস্থ্য বিভাগকি ওদের ক্লিনিকের সাইবোর্ড ঝুলিয়ে মানুষ মারার লাইন্সেস দিয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাঃ আঞ্জুমানআরা মহেশপুরের কোন ক্লিনিকে ডাক্তার ও নার্স নেই স্বীকার করে জানান, আমি খুব তারাতারিই মহেশপুরের সব ক্লিনিক গুলোর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x