মহেশপুরে সরকারী পরিতাক্তা রাস্তা থেকে ১০ লাখ টাকা মুল্যের গাছ কেটে সাবার

Spread the love
  • 224
    Shares

শামীম খান:

গ্রাম অঞ্চলের সরকারী পরিতাক্তা রাস্তা নতুন করে মেরামতের দোহাই দিয়ে রাস্তার উপর লাগানো প্রায় ১০ লাখ টাকা মুল্যের ২শ’টি গাছ কেটে সাবার করে দিয়েছে স্থানীয় এক ইউপি সদস্যসহ গ্রামের প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। গাছ কাটার পর এখন চলছে সরকারী রাস্তার জমি দখলের প্রতি যোগিতার চেষ্টা।

গত শনিবার সকালে মহেশপুরের কাজিরবেড় ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে রাস্তাটি মাফযোগ করার সময় ইউপি সদস্যসহ এলাকার প্রভাবশালীরা এ গাছ গুলো কেটে সাবার করে। গাছ কাটার ঘটনায় রোববার সকালে মহেশপুর থানায় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মাকর্তা আকরামুজ্জামান বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায়ও গাছ কাটার প্রকৃত আসামীদেরকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান,ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাজিরবেড় ইউনিয়নের শালকেরধার এলাকার একটি পুরাতন রাস্তা দখল করে প্রায় ২০ বছর আগে লাগানো হয় বিভিন্ন ধরনের গাছ। এখন রাস্তাটি মেরাতমের কথা বলে গাছ গুলো কেটে ফেলা হচ্ছে। শুধু তাই না রাস্তা কেটে আবাদি জমিও করা হয়েছে। সে জমিতে এখন ধান চাষ করা হচ্ছে। এ সব কিছুই জানতো কাজিরবেড় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আকরামুজ্জামান।

ইউপি সদস্য মফিজুর রহমান জানান,১৯৯১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর কাজিরবেড় গ্রামের বিএনপি নেতা হানেফ,মুকুল,ওলিয়ার রহমানসহ বেশ কয়েক জন প্রভাবশালী ব্যক্তিরা কাজিরবেড় গ্রামের শালকেরধার এলাকার একটি রাস্তা দখল করে গাছ লাগাল। সে মসয় রাস্তার পাশের জমি গুলো যে যার মত দখল করে চাষাবাদ শুরু করে। তিনি আরো জানান,গত শনিবার সকালে রাস্তাটি মাফযোগ করার সময় কাজিরবেড় গ্রামের আয়ুব,মইরে,উজির,শরীফুল,রেজাউল ইসলাম রেজা,রাশেদ,সাদ্দাম,জলিল,আতিয়ারসহ অনেকেই রাস্তার গাছ গুলো কেটে নিয়ে যায়।

কাজিরবেড় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম রেজা জানান, প্রায় ২০ বছর আগে এ রাস্তাটি দখল করে এলাকার কিছু ব্যক্তি গাছ গুলো লাগান। এখন সেই  রাস্তা থেকেই গাছ গুলো কেটে যে যার মতো করে নিয়ে যাচ্ছে। রাস্তাটি এখন মেরামত করা হবে কিনা জানতে চাইলে চেয়ারম্যান সেলিম রেজা কিছুই জানাতে পারেনি।

ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আকরামুজ্জামানের সাথে একাধিক বার তার মুঠো ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়রি। 

সহকারী কমিশনার (ভূমি) রোজিনা আক্তার জানান,সরকারী জায়গা থেকে গাছ কাটার ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। তাছাড়া কেটে নেওয়া গাছ গুলো উদ্বারের পর জদ্ব করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাশ্বতী শীল জানান, সরকারী রাস্তা থেকে যারা গাছ কেটেছে কেউই ছাড় পাবেনা। ইতি পুর্বে যারা গাছ কেটেছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

x